রাত ১২:৫৪ | শনিবার | ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

হলি আর্টিজানে হামলা আইএস করে, জেএমবি নয় : গুনারত্নে

জঙ্গিবাদ বিষয়ে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ রোহান গুনারত্নে বলেছেন, ‘হলি আর্টিজানে হামলাটি আইএস (ইসলামিক স্টেট) করেছিল; জেএমবি (জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ) নয়।’

আজ সোমবার পুলিশপ্রধানদের আন্তর্জাতিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন অধ্যাপক গুনারত্নে। গতকাল রোববার সম্মেলনের উদ্বোধনী দিনেও নিজ বক্তৃতায় এ দাবি করেন গুনারত্নে।

ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর পলিটিক্যাল ভায়োলেন্স অ্যান্ড টেররিজম রিসার্চের (আইসিপিভিটিআর) পরিচালক অধ্যাপক গুনারত্নে বলেন, ‘জেএমবি কোনো বিদেশিকে এখনো মারেনি। কোনো ইটালিয়ান বা জাপানি তাদের শত্রু নয়। বাংলাদেশে আইএস আছে এটি স্বীকার করে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

তবে অধ্যাপক গুনারত্নের মন্তব্যকে উড়িয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক। আজ সোমবার দেওয়া এক ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, যারা আটক হয়েছে, তারা একজনও স্বীকার করেনি যে তারা আইএস।

গত বছরের ১ জুলাই রাত পৌনে ৯টার দিকে গুলশানে স্প্যানিশ রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। হামলার পর রাতেই তারা ২০ জনকে হত্যা করে। সেদিনই উদ্ধার অভিযানের সময় বন্দুকধারীদের বোমার আঘাতে নিহত হন পুলিশের দুই কর্মকর্তা। পরদিন সকালে যৌথ বাহিনীর অভিযানে নিহত হয় পাঁচ হামলাকারী। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরেকজনের মৃত্যু হয়।

জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এ হামলার দায় স্বীকার করে। সংগঠনটির মুখপত্র আমাক হামলাকারীদের ছবি প্রকাশ করে বলে জানায় জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স।

অধ্যাপক গুনারত্নের বক্তব্যের ব্যাপারে আইজিপি শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ‘তিনি পুলিশ কর্মকর্তা নন। তিনি সামরিক কর্মকর্তা নন। তিনি কোনো নিরাপত্তা ইস্যু নিয়েও কাজ করেন না। তিনি একজন একাডেমিক; একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তাঁর একাডেমিক রিসার্চ তিনি তাঁর মতো করে করেছেন। যারা আটক হয়েছে, তারা একজনও স্বীকার করেনি যে তারা আইএস।’

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ২৫০ জন ধরা পড়া ‘জঙ্গি’র ওপর করা একটি জরিপ তুলে ধরা হয়। ওই জরিপের ফলাফলে বলা হয়, বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ধরা পড়া ‘জঙ্গি’দের মধ্যে শতকরা ৮২ ভাগ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ আর ৫৬ শতাংশই সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত।

এ ব্যাপারে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (এআইজি) মনিরুজ্জামান বলেন, ‘২৫০ জনের মতো একটা স্যামপল সাইজ নিয়ে আমরা গবেষণার মতো করেছিলাম। সেখান থেকে এসেছে, এদের একটা বড় অংশই অনলাইন মিডিয়া, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে।’

মনিরুজ্জামান আরো বলেন, ‘সাম্প্রতিককালে জঙ্গিরা তাদের কৌশলে পরিবর্তন আনছে। আগে তারা মোবাইল ফোন বা অন্যান্য প্রযুক্তি ব্যবহার করত, এখন তারা বেশির ভাগই অ্যাপলিকেশন সফটওয়্যার ব্যবহার করছে।’

সম্মেলনে বেশ কয়েকটি দেশের পুলিশপ্রধানসহ দক্ষিণ এশিয়ার ১৪টি দেশের ৫৮ জন পুলিশ সদস্য অংশ নিচ্ছেন। দিনভর আলোচনায় দক্ষিণ এশিয়ায় অপরাধের ধরন, কীভাবে এ থেকে মুক্তি পাওয়া অথবা বড় কোনো অপরাধ দমনে দেশগুলোর ভূমিকা সামনে আসে। এ সময় প্রায় সবগুলো দেশ জঙ্গি দমন ও জঙ্গিবাদ দমনে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরে।
রোহান গুনারত্নে

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» আলফাডাঙ্গায় অপ্পো ব্র্যান্ড সপ এর উদ্বোধন

» মিরপুরে ৩টি ফার্মেসি সিলগালা

» আলফাডাঙ্গায় ছাত্রলীগ নেতা আশিকের মাগফেরাত কামনায় দোয়া

» মানবিক সাহায্যের আবেদন

» মাইজদীতে লাইসেন্স বিহীন ফার্মেসিতে জরিমানা ও মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ জব্দ

» আলফাডাঙ্গায় সরকারের সাফল্য নিয়ে আলোচনা সভা

» রোহিঙ্গাদের হত্যার প্রতিবাদে আলফাডাঙ্গায় বিক্ষোভ

» আলফাডাঙ্গায় ইয়াবাসহ চার যুবক আটক

» ৭ ঘন্টা ধরে বিদ্যুৎ বিহীন আলফাডাংগাবাসী অন্ধকারে ও গরমে অতিষ্ঠ।

» শিগগির চালু হচ্ছে এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়: মেনন

» আলফাডাঙ্গার দলিল জালিয়াত চক্রের হোতা মোক্তার হোসেন,

» আলফাডাঙ্গা উপজেলার উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জনাব মোঃ আজহারুল ইসলাম এর বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে।

» শ্রীবরদীতে ভেজাল ঔষুধ জব্দ ॥ ৪ ফার্মেসীর জরিমানা

» সাংসদ আব্দুর রহমানের একান্ত প্রচেস্টায় জাতীয়করণ হলো আলফাডাঙ্গা এ জেড পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়

» ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে আলফাডাঙ্গায় মানববন্ধন

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা: রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাঈম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক : সাহিদুল ইসলাম পলাশ ভুইয়া
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা, (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে) ঢাকা-১০০০
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | Info@Bartakantho.com
প্রকাশনা : সানশাইন ক্রিয়েটিভ মিডিয়া লিমিটেড

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited

রাত ১২:৫৪, ,

হলি আর্টিজানে হামলা আইএস করে, জেএমবি নয় : গুনারত্নে

জঙ্গিবাদ বিষয়ে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ রোহান গুনারত্নে বলেছেন, ‘হলি আর্টিজানে হামলাটি আইএস (ইসলামিক স্টেট) করেছিল; জেএমবি (জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ) নয়।’

আজ সোমবার পুলিশপ্রধানদের আন্তর্জাতিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন অধ্যাপক গুনারত্নে। গতকাল রোববার সম্মেলনের উদ্বোধনী দিনেও নিজ বক্তৃতায় এ দাবি করেন গুনারত্নে।

ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর পলিটিক্যাল ভায়োলেন্স অ্যান্ড টেররিজম রিসার্চের (আইসিপিভিটিআর) পরিচালক অধ্যাপক গুনারত্নে বলেন, ‘জেএমবি কোনো বিদেশিকে এখনো মারেনি। কোনো ইটালিয়ান বা জাপানি তাদের শত্রু নয়। বাংলাদেশে আইএস আছে এটি স্বীকার করে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

তবে অধ্যাপক গুনারত্নের মন্তব্যকে উড়িয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক। আজ সোমবার দেওয়া এক ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, যারা আটক হয়েছে, তারা একজনও স্বীকার করেনি যে তারা আইএস।

গত বছরের ১ জুলাই রাত পৌনে ৯টার দিকে গুলশানে স্প্যানিশ রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। হামলার পর রাতেই তারা ২০ জনকে হত্যা করে। সেদিনই উদ্ধার অভিযানের সময় বন্দুকধারীদের বোমার আঘাতে নিহত হন পুলিশের দুই কর্মকর্তা। পরদিন সকালে যৌথ বাহিনীর অভিযানে নিহত হয় পাঁচ হামলাকারী। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরেকজনের মৃত্যু হয়।

জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এ হামলার দায় স্বীকার করে। সংগঠনটির মুখপত্র আমাক হামলাকারীদের ছবি প্রকাশ করে বলে জানায় জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স।

অধ্যাপক গুনারত্নের বক্তব্যের ব্যাপারে আইজিপি শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ‘তিনি পুলিশ কর্মকর্তা নন। তিনি সামরিক কর্মকর্তা নন। তিনি কোনো নিরাপত্তা ইস্যু নিয়েও কাজ করেন না। তিনি একজন একাডেমিক; একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তাঁর একাডেমিক রিসার্চ তিনি তাঁর মতো করে করেছেন। যারা আটক হয়েছে, তারা একজনও স্বীকার করেনি যে তারা আইএস।’

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ২৫০ জন ধরা পড়া ‘জঙ্গি’র ওপর করা একটি জরিপ তুলে ধরা হয়। ওই জরিপের ফলাফলে বলা হয়, বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ধরা পড়া ‘জঙ্গি’দের মধ্যে শতকরা ৮২ ভাগ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ আর ৫৬ শতাংশই সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত।

এ ব্যাপারে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (এআইজি) মনিরুজ্জামান বলেন, ‘২৫০ জনের মতো একটা স্যামপল সাইজ নিয়ে আমরা গবেষণার মতো করেছিলাম। সেখান থেকে এসেছে, এদের একটা বড় অংশই অনলাইন মিডিয়া, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে।’

মনিরুজ্জামান আরো বলেন, ‘সাম্প্রতিককালে জঙ্গিরা তাদের কৌশলে পরিবর্তন আনছে। আগে তারা মোবাইল ফোন বা অন্যান্য প্রযুক্তি ব্যবহার করত, এখন তারা বেশির ভাগই অ্যাপলিকেশন সফটওয়্যার ব্যবহার করছে।’

সম্মেলনে বেশ কয়েকটি দেশের পুলিশপ্রধানসহ দক্ষিণ এশিয়ার ১৪টি দেশের ৫৮ জন পুলিশ সদস্য অংশ নিচ্ছেন। দিনভর আলোচনায় দক্ষিণ এশিয়ায় অপরাধের ধরন, কীভাবে এ থেকে মুক্তি পাওয়া অথবা বড় কোনো অপরাধ দমনে দেশগুলোর ভূমিকা সামনে আসে। এ সময় প্রায় সবগুলো দেশ জঙ্গি দমন ও জঙ্গিবাদ দমনে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরে।
রোহান গুনারত্নে

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা: রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাঈম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক : সাহিদুল ইসলাম পলাশ ভুইয়া
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা, (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে) ঢাকা-১০০০
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | Info@Bartakantho.com
প্রকাশনা : সানশাইন ক্রিয়েটিভ মিডিয়া লিমিটেড

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited